Latest Newsফিচার নিউজরাজ্য

ধর্ষককে আড়াল করছেন বিজেপি সাংসদ জন বারলা, অভিযোগ আদিবাসী মহিলার

দৈনিক সমাচার, ডিজিটাল ডেস্ক:
ধর্ষণকারীকে আড়াল করার অভিযোগ উঠলো বিজেপি সাংসদ জন বারলার বিরুদ্ধে। এই ঘটনাকে রাজনৈতিক চক্রান্ত বলছে বিজেপি। সরকারি জমি দখল করে অবৈধ নির্মানের অভিযোগের পর এবার নির্যাতিত আদিবাসী মহিলার পাশে না দাঁড়িয়ে মোটা টাকার বিনিময়ে ধর্ষণকারীকে আড়াল করার অভিযোগ উঠছে বিজেপি সাংসদ জন বারলার বিরুদ্ধে। বিজেপি ঘনিষ্ঠ এক প্রভাবশালী ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে লাগাতার ধর্ষনের অভিযোগ তুলে জেলা পুলিশ সুপারের দারস্থ হলেন এক আদিবাসী মহিলা। একই সঙ্গে ঐ নির্যাতিতা মহিলার আরও অভিযোগ তিনি এই ব্যাপারে সাহায্য চাইতে গিয়েছিলেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বার্লার কাছে। কিন্তু সাংসদ জন বার্লা তাকে সাহায্য করেননি। উল্টে মোটা টাকা নিয়ে ঐ ব্যবসায়ীকে আড়াল করার চেষ্টা চালিয়ে গেছেন। গত কয়েকমাস ধরে এই টানাপোড়েন চলার পর আজ জলপাইগুড়ি পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্তর সাথে দেখা করে তাকে অভিযোগ জানিয়ে যান নির্যাতিতা ঐ আদিবাসী মহিলা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঐ ব্যাবসায়ী নাম জয়চাদ আগরওয়াল। বাড়ি বানারহাট থানা এলাকায়। ধর্ষণের অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। এই ঘটনায় নির্যাতিতা মহিলা সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানান তিনি এই বিষয়ে সাহায্য চাইতে আলিপুর দুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বার্লার কাছে গিয়েছিলেন। কিন্তু সাংসদ তাকে সাহায্য না করে উল্টে ব্যাবসায়ীকে আড়াল করতে মোটা টাকা নিয়েছেন জয়চাঁদ আগরওয়ালার কাছ থেকে। তাই তিনি একপ্রকার বাধ্য হয়ে আজ পুলিশ সুপারের দারস্থ হয়েছেন।

ঘটনায় জলপাইগুড়ি পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্ত বলেন, আজ বানারহাট থানায় স্থানীয় ব্যাবসায়ী জয়চাঁদ আগরওয়ালার বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করেছেন এক নির্যাতিতা আদিবাসী মহিলা। একইসঙ্গে ঐ মহিলার আরও অভিযোগ করেছেন এই ব্যাপারে তিনি স্থানীয় সাংসদ জন বার্লার কাছে গেলে তিনি তাকে সাহায্য না করে উল্টে তার সাথে আর্থিক প্রতারণা করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে জয়চাঁদ আগরওয়ালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আগামীকাল তাকে জলপাইগুড়ি আদালতে তোলা হবে। মহিলার জবানবন্দি নেওয়া হবে। প্রয়োজনে সাংসদ জন বার্লাকেও জেরা করা হতে পারে। এই ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপির জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি বাপী গোস্বামী বলেন, ‘‌আইন আইনের পথে চলবে। তবে এই ঘটনা যদি অনেকদিন আগে হয়ে থাকে তবে উনি তখন কেন অভিযোগ করেননি। এর পিছনে রাজনৈতিক চক্রান্ত রয়েছে।’

এই ঘটনায় বিজেপি সাংসদ জন বার্লার প্রতিক্রিয়া জানতে তাকে ফোন করা হলে তিনি ফোন কেটে দেন। এরপর তাকে বারবার ফোন করা হলে তিনি আর ফোন ধরেননি।

Leave a Reply

error: Content is protected !!