Saturday, March 2, 2024
Latest Newsআন্তর্জাতিকফিচার নিউজ

রোহিঙ্গা গণহত্যার জের, ইউরোপীয় পার্লামেন্টে সাসপেন্ড সু চি

দৈনিক সমাচার, ডিজিটাল ডেস্ক: ২০১৫ সালে অর্ধ শতক ধরে চলা সেনা শাসনের সমাপ্তি হয় মায়ানমারে৷ বিপুল ভোটে জিতে ক্ষমতায় বসেন আং সান সু চি৷ ২০১৬ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৭ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত মায়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের গুলি করে হত্যা করা হয়৷ গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হয়৷ এরপর ২০১৭ সালের আগাস্টে ফের রাতারাতি রোহিঙ্গা গণহত্যা শুরু হয় মায়ানমারে৷ প্রাণের ভয়ে রোহিঙ্গারা পালাতে থাকে বাংলাদেশে৷ সেই ঘটনায় আং সান সু চি-র বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে গণহত্যার মামলা দায়ের করা হয়৷

এবার ইউরোপীয় পার্লামেন্টে মানবাধিকার পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে আর আমন্ত্রণ জানানো হবে না মায়ানমারের নেত্রী আং সান সু চি-কে ৷ রোহিঙ্গা গণহত্যার ঘটনায় সু চি-কে সাসপেন্ড করলেন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সাংসদরা৷ বৃহস্পতিবার তাঁরা জানান, রোহিঙ্গা গণহত্যার প্রতিবাদে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ যেহেতু ১৯৯০ সালে তিনি শাখারভ পুরস্কার পেয়েছিলেন, তাই পুরস্কারজয়ী হিসেবে প্রতিবারই তাঁকে আমন্ত্রণ জানানো হয় অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিতের সঙ্গে৷ কিন্তু এবার থেকে আর তাকে আমন্ত্রণ জানানো হবে না বলে জানান ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সাংসদরা।

১৯৯০ সালে এই ইউরোপীয় পার্লামেন্টই আং সান সু চি-কে মানবাধিকার পুরস্কারে ভূষিত করেছিল৷ মায়ানমারে সেনা শাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় তাঁকে দীর্ঘ দিন রাজনৈতিক বন্দি রাখা হয়েছিল৷ সু চি বর্তমানে মায়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর৷ ১৯৯১ সালে তিনি নোবেল শান্তি পুরস্কার পেয়েছিলেন৷ কিন্তু রোহিঙ্গা গণহত্যার পর সেটিও নিয়ে নেওয়ারও দাবি ওঠে৷

Leave a Reply

error: Content is protected !!