Sunday, March 3, 2024
Latest Newsদেশফিচার নিউজ

মুসলিম নাম শুনেই বেধড়ক মার! আখলাকের হাত কেটে ফেলল হিন্দুত্ববাদীরা

দৈনিক সমাচার, ডিজিটাল ডেস্ক : হিন্দুত্ববাদীদের রোষানলে আরও এক আখলাক। এবার হরিয়ানায়। কাজের খোঁজে বেরিয়ে উগ্র হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণের শিকার হয়ে নিজের হাত খোয়ালেন হরিয়ানার নানাউতার বাসিন্দা পেশায় ক্ষৌরকার ২৮ বছরের আখলাক।

কাজের খোঁজে পানিপত গিয়েছিলেন আখলাক। সেখানে পৌঁছানোর পর দু’জন এসে তাঁর নাম জানতে চায়। নাম জানার পরই তারা বেধড়ক মারতে শুরু করে। আধমরা করে তাঁকে রাস্তার ধারে ফেলে দেওয়া হয়। মার খাওয়ার পর পাশের একটি বাড়িতে জল চাইতে যান আখলাক।

সেই বাড়ি থেকে একজন বেরিয়ে এসে আখলাককে ভিতরে টেনে নিয়ে যান এবং লাঠি দিয়ে পেটাতে শুরু করেন। আখলাক বুঝতে পারেন যে এরা সেই লোক যারা কয়েক মিনিট আগে তাঁকে মারছিলেন। আখলাকের হাতে ‘৭৮৬’ উল্কি করা দেখে, তখন চেন করাত দিয়ে আখলাকের ডান হাত কেটে ফেলে তারা।

সকাল ৫টা নাগাদ আখলাকে জ্ঞান ফেরে। তিনি দেখেন যে এক রেল স্টেশনের ধারে পড়ে আছেন। এক অজ্ঞাত পরিচয় লোক ইকরামকে গোটা ঘটনাটা জানায়। ইকরাম বলেন যে আখলাককে রেল স্টেশনের কাছে ফেলে দেওয়া হয় যাতে ট্রেন দুর্ঘটনার ফলে আখলাকের হাত কাটা গেছে সেটা প্রমাণ করা যায়।

তারপর তাঁকে পানিপত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে ইকরাম গিয়ে দেখেন সেখানে এক জিআরপি আধিকারিক উপস্থিত আছেন। এসআই তাঁকে বলেন যে সেটা একটা দুর্ঘটনা। হিংসার ঘটনাকে নস্যাৎ করে দিতে এসআই শুরুতেই একে দুর্ঘটনা বলে দাগিয়ে দেন।

আখলাকের ভাই ইকরাম খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন যে অপরাধীরা সাইনি সম্প্রদায়ের। তাঁর কথা অনুযায়ী এসআই তাঁদের পানিপতের চাঁদনি বাগ থানায় নিয়ে যান এবং এফআইআর জমা নেন। আখলাককে পরে রোহতাক হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাঁকে ভর্তি নিতে চাননি। ইকরামের এখন চিকিৎসা চলছে নানাউতায়।

এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। এসআই বলবান জানিয়েছেন কেসটা চাঁদিবাগ থানায় পাঠানো হয়েছে এবং তারাই তদন্ত করে দেখবে।

 

Leave a Reply

error: Content is protected !!