Sunday, March 3, 2024
Latest Newsদেশফিচার নিউজ

দিল্লি গণহত্যা: বিদ্বেষমূলক ভাষণ দেননি, আজব দাবি করলেন কপিল মিশ্র

দৈনিক সমাচার, ডিজিটাল ডেস্ক : চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে উত্তর-পূর্ব দিল্লির গণহত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল ২৮ জুলাই বিজেপি নেতা কপিল মিশ্রকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল। সেই জেরার সময় মৌজপুরে কোনও রকম বক্তৃতা দেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন তিনি। কপিলের এই কথা উল্লেখ করে করকরদুমা আদালতে চার্জশিট দায়ের করেছে দিল্লি পুলিশ। যদিও মৌজপুর ট্রাফিক সিগন্যালের পাশে ডিসিপি বেদপ্রকাশ মিশ্রের উপস্থিতিতে একদল সিএএ সমর্থনকারীদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখতে দেখা গিয়েছিল কপিলকে‌। ২৩ ফেব্রুয়ারি ট্যুইটারে তাঁরই দেওয়া এক ভিডিও তে তা স্পষ্ট।

কপিল মিশ্রকে কি কি প্রশ্ন করা হয়েছিল, লেখা হয়েছে চার্জশিটে। সেই ভাইরাল ভিডিও সম্পর্কেও তাকে প্রশ্ন করা হয় বলে জানানো হয়েছে চার্জশিটে। মিশ্র পুলিশকে বলেছেন যে, সিএএ বিরোধীদের আন্দোলনের ফলে স্থানীয়দের যাতায়াত ও দোকান খোলার সমস্যা হচ্ছিল। শিশুদেরও স্কুলে যেতে অসুবিধা হয়েছে বলে তাঁর দাবি। পাশাপাশি জানিয়েছেন যে, তিনি পুলিশকে কেবল তিন দিনের মধ্যে রাস্তা ফাঁকা করে দিতে বলেছিলেন। হিংসা পীড়িত এলাকায় তিনি ডিসিপির সঙ্গে গিয়েছিলেন এবং কিছু এলাকায় তখন হিংসা ছড়িয়ে পড়েছিল।

তাঁকে প্রশ্ন করা হয় যে, হিংসার আগে উত্তর-পূর্ব দিল্লির জেলায় তিনি গিয়েছিলেন কিনা। এর জবাবে তিনি বলেছেন, “আমার বাড়ি যমুনা বিহারে। যেটা এই জেলাতেই।” একই সঙ্গে মিশ্রের দাবি, কবিরনগর ও জাফরাবাদে সিএএ বিরোধীরা পাথর ছুড়তে শুরু করেছিল। তিনি সেখানে দাঁড়িয়েছিলেন, সেখান থেকে ৩০০ মিটার দূরে পুলিশ আন্দোলনকারীদের আটকে দেয়। ডিসিপিকে রাস্তা খালি করতে বলে তিনি তখনই ওখান থেকে চলে গিয়েছিলেন। যদিও বিজেপি নেতা কপিল মিশ্রের এই দাবির সঙ্গে তার সঙ্গে উস্কানিমূলক বক্তব্য ও হিংসায় প্ররোচনা দেওয়ার যে ভিডিও মিলেছে তার তফাত রয়েছে। সেইসঙ্গে দিল্লি পুলিশের তদন্তের নিরপেক্ষতাও প্রশ্ন চিহ্নের মুখে পড়েছে। হিংসা থামানোর বদলে হিংসায় মদদ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে অমিত শাহের নিয়ন্ত্রণাধীন দিল্লি পুলিশের বিরুদ্ধে।

 

 

Leave a Reply

error: Content is protected !!