Sunday, March 3, 2024
Latest Newsদেশফিচার নিউজ

নির্বাচন পিছিয়েছে ৭০ দেশ, এদিকে ১৩২ শতাংশ খরচ বাড়িয়ে বিহারে ভোট করাবে কমিশন

দৈনিক সমাচার, ডিজিটাল ডেস্ক : কোভিড আবহে দেশের প্রথম নির্বাচন। সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে শুক্রবার বিহার বিধানসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণা করেই ফেলল নির্বাচন কমিশন। রাজনৈতিকভাবে অতি গুরুত্বপূর্ণ এই রাজ্যটির নির্বাচন হবে ৩ দফায়। ভোটের ফলাফল ঘোষণা করা হবে ১০ নভেম্বর।

তবে এদিন বিহার নির্বাচনের তারিখ ও পর্ব ঘোষণা করতে নেমে নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে জানানো হয়, কতটা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হচ্ছে। কারণ প্রতিদিনই দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। তারই মধ্যে এই নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে আর তা যথাযথ ভাবে রূপায়িত করতে অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বন করতেই হবে। আর তা না করলে যে সংক্রমনের হার মাত্রা ছাড়াতে পারে তা উল্লেখও করে কমিশন।

এদিন নির্বাচন কমিশনের প্রধান সুনীল আরোরা মনে করিয়ে দেন, কোভিড আবহে ৭০টি দেশ নির্বাচন প্রক্রিয়া পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে‌। এমন পরিস্থিতিতে বিহার বিধানসভার নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করাই এখন সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ কমিশনের সামনে। করোনা আবহে ভোট করতে গিয়ে সরকারের খরচ বেড়ে দ্বিগুণের বেশি হয়েছে।

২০১৫ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বিহার ভোটে খরচ হয়েছিল ২৭০ কোটি টাকা। কিন্তু করোনার কারণে বিভিন্ন বিধিনিষেধ মেনে ভোট করতে গিয়ে সরকারের খরচ বেড়ে গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৬২৬ কোটি টাকা বলে জানা গিয়েছে। অর্থাৎ শতাংশের বিচারে ১৩১.৪৮ শতাংশ। এদিন নির্বাচন কমিশনের প্রধান সুনীল আরোরা আরও জানান, কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষদের জন্যও আলাদা বন্দোবস্ত থাকবে। যাতে তাঁরাও বিনা ঝুঁকিতে ভোট দান করতে পারেন।

বিহার বিধানসভার আসন ২৪৩টি। এই ২৪৩ আসনের বিহার বিধানসভার ৩৮টি আসন তপশিলি জন্য এবং ২টি আসন তপশিলি উপজাতির জন্য সংরক্ষিত। ৩ দফায় হবে এবার বিহারের নির্বাচন। প্রথম দফায় ২৮ অক্টোবর হবে ভোট গ্ৰহণ। ১৬টি জেলায় ৭১টি নির্বাচন কেন্দ্র নিয়ে হবে প্রথম দফা। ৩১ হাজার পোলিং স্টেশন থাকবে। দ্বিতীয় দফায় ভোট গ্রহণ হবে ৩ নভেম্বর। এই দফায় ১৭ টি জেলায় ৯৪টি নির্বাচনী কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হবে। থাকবে ৪২ হাজার পোলিং স্টেশন। ৭ নভেম্বর তৃতীয় দফায় ১৫টি জেলায় ৭৮টি নির্বাচনী ক্ষেত্র নিয়ে ভোট গ্ৰহণ হবে। ভোট পর্বের শেষ দিনের মনোনয়ন হবে ৮ অক্টোবর।

এবারে ভোট গ্ৰহণের সময় এক ঘন্টা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। কোভিড আক্রান্ত রোগীদের ভোট দানের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হবে। ভোট গ্ৰহণের শেষ দফায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভোটাররা ভোট দিতে পারবেন বলে জানিয়েছেন কমিশন। আর এই ভোট গ্ৰহণ যাতে নির্বিঘ্নে সম্পূর্ণ হয় তার জন্য কয়েক লাখ পিপিই কিট, মাস্ক স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করবে কমিশন। শুধু তাই নয়, কমিশনের তরফ থেকে আরও বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ করা হচ্ছে। যেমন, একটি বুথে ভোটারের সংখ্যা দেড় হাজার থেকে কমিয়ে ১ হাজার করা হয়েছে। ফলে ভোটের বুথের সংখ্যা ৬৩ হাজার থেকে বেড়ে হয়েছে লক্ষাধিক। ভোট গ্ৰহণের সময়ও একঘন্টা বাড়ানো হয়েছে‌। সকাল সাতটা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। নিয়োগ করা হবে নোডাল হেলথ অফিসার।

এছাড়া সমস্ত নির্বাচনী জনসভায় দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। মনোনয়ন হবে অনলাইনেই, রোড শো’র অনুমতি মিলবে তবে ছোট কনভয়ে দূরত্ব মেনে, বাড়ি, বাড়ি ভোট প্রচারের ক্ষেত্রে ৫ জনের বেশি যাওয়া যাবে না। পুরো নির্বাচন প্রক্রিয়ায় মাস্ক, গ্লাভস, থার্মাল স্ক্যানার এবং স্যানিটাইজার ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক। অর্থাৎ একাধিক গাইডলাইন মেনে হবে ভোট গ্রহণ। এদিকে ২৯ নভেম্বর বিহারের বর্তমান বিধানসভার শেষ হবে। বিহারের পরই যে সমস্ত রাজ্যগুলিতে বিধানসভার মেয়াদ শেষ হচ্ছে সেগুলি হল বাংলা, অসম, পদুচেরি ও তামিলনাড়ু। ২০২১-এর ৩০ মে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার মেয়াদ শেষ হবে। ফলে বিহারের নির্বাচন বাংলার জন্যও ইঙ্গিতবাহী। কারণ আগামী বছর এপ্রিল-মে মাসে বাংলায় ভোট গ্ৰহণ হওয়ার কথা‌। কোভিড পরিস্থিতিতে ভোট গ্রহণ পিছিয়ে যাবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন ছিল। বিহার নির্বাচন যথা সময়ে হলে বাংলাতেও যথাসময়ে নির্বাচন হবে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে। নীতিশ কুমারের নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের দখলে থাকা বিহারে এবার রাজনৈতিক পালাবদল হয় কিনা তা দেখার জন্যও আগ্ৰহ রয়েছে অন্য রাজ্যের মানুষের মধ্যে।

 

Leave a Reply

error: Content is protected !!