Latest Newsফিচার নিউজরাজ্য

আসল এজেন্ডা হিন্দুত্ব, সেই লক্ষ্যে এনপিআরকে ধর্মীয় অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে : মনসা সেন

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা, দৈনিক সমাচার, কলকাতা : নাগরিকত্ব আইন, এনআরসি ও এনপিআরের বিরোধিতা করে কলকাতা প্রেস ক্লাবে একটি প্রেস কনফারেন্স করল ওয়েলফেয়ার পার্টি পশ্চিমবঙ্গ শাখা। এদিনের প্রেস কনফারেন্স থেকে এনপিআর নিয়ে গুরুতর অভিযোগ তুললেন পার্টির রাজ্য সভাপতি মনসা সেন। এনপিআর নিয়ে বিজেপি সরকারকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ‛হিন্দুত্বের এজেন্ডাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এনপিআরকে একটি ধর্মীয় অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।’

মনসা বাবুর কথায়, ‛১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন অনুযায়ী ভারতের একজন নাগরিকের যাবতীয় তথ্য জোগাড় করার নামই এনপিআর। এককথায় একটা ডাটাবেস। এরজন্য বাড়ি বাড়ি সমীক্ষা হবে, কিন্তু কোনওভাবেই নাগরিকের বায়োমেট্রিক বা পরিচয়ের কোনও প্রমাণপত্র চাওয়া যাবে না। ইউপিএ সরকারের আমলে এই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল। একটি পরিবারে কতজন লোক থাকে, পরিবারের কেউ অন্য রাজ্যে থাকেন কিনা, বিগত ৬ মাস একই ঠিকানায় আছেন কিনা এবং আগামী ৬ মাস একই ঠিকানায় থাকবেন কিনা এসব তথ্য সংগ্রহের নামই এনপিআর।’

তিনি আরও বলেন, ‛এনপিআর হচ্ছে এনআরসির প্রথম ধাপ – একথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁর মন্ত্রকের ওয়েবসাইটে স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন। ২০১৮-১৯ সালের বার্ষিক রিপোর্টের ২২২৬ নম্বর পাতায় একথা স্পষ্ট করে বলে দেওয়া হয়েছে। আমরা এনপিআরের কেন বিরোধিতা করছি? এনপিআরে নতুন কিছু যোগ করা হয়েছে যেমন, বাবা-মায়ের জন্মস্থান, ধর্ম ইত্যাদি। ইউপিএ সরকারের আমলে যে এনপিআর হয়েছিল সেখানে এসব উল্লেখ ছিল না। এসব উল্লেখ করে যে নতুন কলম বানানো হয়েছে, এই কলম দেখে আমাদের সন্দেহ হচ্ছে, হিন্দুত্বের এজেন্ডাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এনপিআরকে একটি ধর্মীয় অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এসব কারণেই আমরা এনপিআরের বিরোধিতা করছি।’

আমাদের সব খবর পড়ুন এইবার মোবাইল অ্যাপে। ডাউনলোড করুন বাংলার সেরা নিউজ অ্যাপ

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

Leave a Reply

error: Content is protected !!