Sunday, March 3, 2024
Latest Newsদেশফিচার নিউজ

‛নকল নোট’ ছেয়ে গেছে বাজারে! ২০০, ৫০০-র নোট নিয়ে সাবধান করল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক

দৈনিক সমাচার, ডিজিটাল ডেস্ক : ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে নরেন্দ্র মোদী সরকার আচমকা ঘোষণা করে প্রচলিত ৫০০ এবং এক হাজার টাকার নোট বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নোটবন্দির সিদ্ধান্তের পরে, সরকার ৫০০ ও ২০০০ টাকার নোটের নতুন সিরিজের পাশাপাশি ২০০ টাকার নোটও চালু করেছিল। সে সময় সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল টাকা জাল করার সমস্ত পথ বন্ধ করার উদ্দেশ্যেই হঠাৎ করে এরকম গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

 

যদিও নোটবন্দির ৪ বছর পরেও নোট জাল হওয়া বন্ধ করতে পারছে না সরকার। বরং ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে ২০০ টাকার আর ৫০০ টাকার জাল নোটে ভরে গেছে দেশের বাজার। মঙ্গলবার ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের বাৎসরিক পরিসংখ্যান প্রকাশিত হয়েছে। পরিসংখ্যানের দিকে নজর রাখলে দেখা যাবে ২০১৮-১৯ সালে জাল ৫০০টাকার নোটের সিরিজ ধরা পড়েছিল ২১৮৬৫ খানা৷ আর ২০১৯-২০ সালে সেই সংখ্যাটা দাঁড়িয়েছে ৩০,০৫৪ তে। অর্থাৎ ৫০০টাকার জাল নোটের সংখ্যা এক বছরে ৩৭ শতাংশ বেড়েছে।

একইরকমভাবে, জাল ২০০ টাকার নোটের সনাক্তকরণ গত একবছরে ১৫১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। পরিসংখ্যান থেকে স্পষ্ট যে আরবিআই এবং ব্যাঙ্কগুলি একসঙ্গে ২০১৮-১৯ সালে ২০০ টাকার ১২৭২৮টি জাল নোট সনাক্ত করেছিল, যা ২০১৯-২০ তে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১,৯৬৯ এ। দেখা যাচ্ছে, জাল নোটের সমস্যা কমে যাওয়ার বদলে ক্রমশ আরও বেড়ে গেছে। সেই চাঞ্চল্যকর তথ্যই একরকম চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল রিজার্ভ ব্যাঙ্কের এর নতুন প্রতিবেদন।

বিশেষজ্ঞদের অনেকের মতে, রিজার্ভ ব্যাঙ্কের দেওয়া এই পরিসংখ্যান গুরুত্বপূর্ণ। ব্যাঙ্কের হাতে যে নকল নোট এসেছে বা পুলিশি ধরপাকড়ে যেটুকু ধরা পড়েছে তার ভিত্তিতেই এই রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে। হতেই পারে বাস্তবে বাজারে নকল নোটের সংখ্যা এর কয়েক গুণ।

পাশাপাশি ২০০০ টাকার নকল নোটের পরিমাণ গত বছরের তুলনায় ২২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। আরবিআইয়ের তথ্য আরও দেখায় যে, ২ হাজার টাকার নোটের সার্কুলেশন গত দুবছরে চোখে পড়ার মতো কমেছে। পাশাপাশি ৫০০, ২০০ ও ১০০ টাকার মতো ছোটো নোটের সরবরাহ বেড়েছে বেশ কয়েকগুণ।

 

Leave a Reply

error: Content is protected !!